৯৯% দর্শক মনে করেন সেটি ভাবির চরিত্র

53

ধারাবাহিক নাটক ‘ফ্যামিলি ক্রাইসিস’–এ রুনা খান অভিনীত চরিত্র নিয়ে দর্শকেরা তাঁকে প্রায়ই ভুল বোঝেন। এমনটাই ধারণা নাটকের ‘সালমা ভাবি’ চরিত্রের এই অভিনেত্রীর। বছর তিনেক আগে এনটিভিতে প্রচারিত এ নাটকে রুনা খান সালমা ভাবি চরিত্রে অভিনয় করে দারুণ জনপ্রিয়তা পান। চরিত্রটি এতটাই জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে রুনাকে প্রায়ই সালমা ভাবি ডাক শুনতে হয়।

 

নির্দিষ্ট একটি নাটক বা সিনেমার শুটিংয়ের সময়ে সেটির কাজ ছাড়া অন্য কোনো কাজ হাতে রাখেন না রুনা খান। চেষ্টা করেন এ সময়টায় ওই নির্দিষ্ট নাটক বা চলচ্চিত্রের চরিত্রটিতে ডুবে থাকতে। রুনা জানালেন, কোনো চরিত্র ভালো না লাগলে জোর করে নাটক বা চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেন না। তেমনই একটি পছন্দের চরিত্র ছিল সালমা ভাবি। রুনা বলেন, ‘একটি পরিবারে যখন সব দায়িত্ব থাকে ভাবির ওপর, তখন চরিত্রটিকে শুধু ভাবির চরিত্র বলতে চাই না। এই চরিত্রের মধ্য দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বের বিষয়টি ফুটে ওঠে। এই পরিবারের কী হচ্ছে, কী হবে, সিদ্ধান্ত এই চরিত্রের হাতে। এর মধ্য দিয়ে বার্তাও দেওয়া হয়েছে। চরিত্রটি সবার কথা বলার কারণেই দর্শকের পছন্দ হয়ে উঠেছে। এটাকে আমি শুধু ভাবির চরিত্র বলব না। এটা যেমন গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র, তেমনি এই চরিত্রের গভীরতাও অনেক বেশি।’

দর্শকেরা পছন্দ করবেন এমন চরিত্রগুলোতে বুঝেশুনে নাম লেখাতে চান রুনা খান। শুধু তা–ই নয়, বছরের মাঝামাঝি তিনি শরীরের ওজন কমিয়েও আলোচনায় এসেছিলেন। এখন আরও বাছবিচার করে অভিনয় করতে চান। ওজন কমানোর পরে কী ধরনের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সবার কাছ থেকে প্রস্তাব পাচ্ছেন জানতে চাইলে রুনা বলেন, ‘অনেক ধরনের চরিত্রের জন্য তো ডাকে। তবে আমার পছন্দ হলে যেকোনো ধরনের চরিত্রে অভিনয় করব। তরুণী, বৃদ্ধা যেকোনো চরিত্রেই আমি কাজ করতে চাই। যেখানে অভিনয়ের সুযোগ আছে, সেখানেই অভিনয় করতে চাই।’

সম্প্রতি রুনা খান শুটিং শেষ করেছেন সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি ‘দাফন’ সিনেমার। সিনেমায় তাঁর চরিত্রের নাম কুলসুম। গ্রামের একটি মেয়ের বেড়ে ওঠা, বিয়ে, সংসার ও টানাপোড়েনের গল্প নিয়েই সিনেমাটি। সিনেমার পরিচালক কৌশিক শংকর দাস। রুনা খান জানান, সিনেমাটির কুলসুম চরিত্র তাঁর খুবই পছন্দের। নারীপ্রধান চরিত্রগুলো তাঁকে সব সময়ই টানে। গত বছর সিনেমার বেশির ভাগ দৃশ্যের শুটিং শেষ করেছেন। জানালেন, খুব শিগগিরই আরও দুই দিনের শুটিংয়ে অংশ নেবেন। সিনেমায় তাঁর সহ-অভিনয়শিল্পী ছিলেন সাইফ খান ও প্রিয়ন্তী উর্বী।